জগন্নাথপুরে পল্লী বিদ্যুৎ এর ঘন ঘন লোডশেডিং, জনগণের ভোগান্তি

7

জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ)প্রতিনিধি: জগন্নাথপুরে পল্লী বিদ্যুৎ এর ঘন ঘন লোডশেডিং এর ফলে গ্রাহকরা অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন।স্কুল -কলেজ ও মাদ্রাসাগামী শিক্ষার্থীদের লেখা-পড়া সহ অফিসিয়াল কার্যক্রম বিঘ্নিত হওয়ার পাশাপাশি ব্যবসা-বানিজ্যে ধ্বস নেমেছে। এমনকি ফ্রিজে রাখা মাছ-মাংস নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।

সুনামগঞ্জের পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির আওতাধীন জগন্নাথপুর উপজেলার সর্বত্র চলতি সেপ্টেম্বর মাসের শুরু থেকেই ঘন্টার পর ঘন্টা, দিন ও রাতে প্রয়োজনীয় বেশীর ভাগ সময় পল্লী বিদ্যুৎ এর লোডশেডিং চলছে। মোবাইল ফোনের মিসড কলের মত আসা যাওয়া করছে। এই আছে আবার নেই,আকাশের বিজলীর মতো বিদ্যুৎ এর ভেলকিবাজি চলছে। দিনের বেলায় অধিকাংশ সময় বিদ্যুৎ না থাকায় অফিসিয়াল কার্যক্রম বিঘ্নিত হওয়ার পাশাপাশি উপজেলা সদর জগন্নাথপুর বাজার সহ অত্র উপজেলার সবকটি হাট-বাজারে ব্যবসা- বানিজ্যে মারাত্মক ব্যাঘাত ঘটছে।

প্রতিনিয়ত সন্ধ্যালগ্ন থেকে রাত ৯/১০ ঘটিকা পর্যন্ত বিদ্যুৎ এর লোডশেডিং চলায় স্কুল -কলেজ ও মাদ্রাসাগামী শিক্ষার্থীদের লেখা-পড়া বিঘ্নিত হচ্ছে। এমনকি ফ্রিজে রাখা মাছ-মাংস নষ্ট হয়ে যাচ্ছে।
এ ব্যাপারে স্থানীয়রা তাদের অভিপ্রায় ব্যক্ত করতে গিয়ে বলেন, অফিসিয়াল সময় বিদ্যুৎ না থাকায় মারাত্মক সমস্যা হচ্ছে। ঘন ঘন লোডশেডিং এর ফলে শিক্ষার্থীদের লেখা -পড়া বিঘ্নিত হওয়ার পাশাপাশি ফ্রিজে রাখা মাছ-মাংস নষ্ট হচ্ছে। আজো (১৫ ই সেপ্টেম্বর) সকাল ১১ ঘটিকা থেকে উপজেলার কোথাও বিদ্যুৎ নেই। ঘন ঘন লোডশেডিংয়ে অত্র এলাকার জনসাধারণ অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছেন।উপজেলার সর্বত্র পল্লী বিদ্যুৎ এর গ্রাহকেরা মোমবাতি, চার্জার লাইট ও জেনারেটর নির্ভরশীল হয়ে পড়েছেন। এব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যাবস্থা গ্রহন করার জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করছেন এলাকাবাসী।

এ বিষয়ে সুনামগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এক কর্মকর্তা বলেন, বর্ষা মৌসুম তাই আবহাওয়া জনিত কারণে মাঝে -মধ্যে কিছু সময় লোডশেডিং হচ্ছে। যাতে এমনটা না হয় সেই লক্ষে কাজ চলছে। এক প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, ছাতক-সুনামগঞ্জ লাইনে মেরামতের কাজ চলছে। বিকাল ৪ টা নাগাদ বিদ্যুৎ পাওয়া যাবে।