জমজমাট ভাবে চলছে যশোর শহরে মাদকের ব্যবসা কুলষিত হচ্ছে সমাজ ব্যবস্থা

27

যশোর প্রতিনিধি: জমজমাট ভাবে চলছে যশোর শহরে মাদকের ব্যবসা কুলষিত হচ্ছে সমাজ ব্যবস্থা । শহরের একটি বড় রাজনৈতিক দলের সর্শস্ত্র সন্ত্রাসিরা এই মাদক ব্যবসা নিয়ন্ত্রন করছে। তারা কোটিটাকা ইনভেষ্টমেন্ট করে এই মাদক ব্যবসাকে শহরের বিভিন্ন মহল্লায় ছড়িয়ে দিচ্ছে যুবকদের মাঝে। ফলে সমাজ হচ্ছে কুলষিত।

মুখ চেনা এই সব সন্ত্রাসী মাদক ব্যবসায়ীরা রাজনৈতিক পদ ও মর্যাদা ব্যবহার করে মাদকের রমরমা ব্যবসা করে চলেছে। এইসব রাজনৈতিক নেতারা তাদের দলের উচ্ছিষ্ট সন্ত্রাসীদের নেশার ভুবনে ডুবিয়ে তাদের ব্যবহার করে লক্ষ লক্ষ টাকা মাদক বিক্রয়ের মাধ্যমে লাভবান হচ্ছে। শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে তাদের মাদক বিকিকিনির এজেন্ট রয়েছে।

এর মধ্যে শহরের পুরাতন কসবা মহল্লায় ও বকুলতলায় সব থেকে তাদের বড় মাদকের কেনা বেচা হয়। শহরের দড়াটানাসহ বকুলতলা রেজিস্ট্রি অফিসের সম্মুখে পরিত্যক্ত পুরাতন রাইফেল ক্লাবে এই মাদকের আস্তানায় মাদক সন্ত্রসী ও মাদকপায়িদের আস্তানা লক্ষ করা যায়। সেখানে জিনের বাদশা নামে পরিচিত রফিক এই মাদক ব্যবসার সাথে সস্পৃক্ত। তার বাসায় মাদক সংরক্ষন করা হয় এবং বিকিকিনি করা হয়। এছাড়া হান্নান নামে বহিরাগত একজন ভন্ড ফকির মাদকপান ও এ ব্যবসার সাথে যুক্ত আছে। এমনি শহরের রেলগেট এলাকার গাজায় আসক্তি মান্নু নামে এ যুবক এই মাদক ব্যবসার সম্পৃক্ত রয়েছে। প্রতিরাতে তারা রাইফেল ক্লাবে বসে আডা জমায় এবং গাজা ফেনসিডিল নামক মাদক পান করে নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ে। অনেক সময় রাস্তায় চলাচলরত পথচারীদের উক্তাত্ব করতে দেখা গেছে।

আরো জানা যায়, পুরাতন কসবা মহল্লার মাদক ও ফেনসিডিল ব্যবসায়ী হানিফ উক্ত কথিত নেতার সার্বিক সহযোগিতায় প্রকাশ্যে মাদক ব্যবসার সাথে সম্পৃক্ত। এই হানিফের নিয়ন্ত্রনে রয়েছে পঞ্চাশ জনের অধিক মাদকসেবী সন্ত্রসী ক্যাডার বাহিনী। তারা দডাটানা থেকে বকুলতলা হয়ে পুরাতন কসবা চুয়াডাঙ্গা বাসষ্টান্ড বাজার পর্যন্ত সন্ত্রাসী কার্যকলাপ পরিচালনা করে।

মাদক ব্যবসী এই হানিফের সাথে তার বডিগাড হিসেবে রয়েছে এলাকার সন্ত্রাসী কালিম। তার পুত্র একজন খুনী আসামী। বতমানে সে খুনের দায়ে যশোর জেলহাজতে বন্দি রয়েছে। এছাড়া গাজায় নেশাগ্রস্থ বাবুল এই চক্রের সাথে সম্পৃক্ত রয়েছে। এর ফলে এলাকায় উঠতি বয়সী যুবকগণ সহজলভ্য মাদক হাতের কাছে পেয়ে তারা নেশার জগতে তলিয়ে যাচ্ছে। পুরাতন কসবা ফাঁড়ি পুলিশ এসব মাদক ব্যবসায়ীদের কার্যকলাপ জেনেও জৈনক প্রভাবশালীর এক রাজনৈতিক নেতার কারণে তারাও দেখেও না দেখার ভান করে চলে। ফলে পুরাতন কসবা মহল্লা যুবকরা মাদকের নেশায় আসক্ত হয়ে বিভিন্ন অপকর্মে জড়িয়ে পড়ছে। এ কারণে অভিভাবকগণ তাদের সন্তানদের নিয়ে মানসিক দুশ্চিতায় রয়েছে।

স্থানীয় বাসীন্দারা অবিলম্বে ওইসব মাদক ব্যবসায়ীদের চিহিৃত করে গেফতার পূর্বক আইনী ব্যবন্থা গ্রহণ করতে যশোরের পুলিশ সুপারের আশুদৃষ্টি আকর্ষণ করেছেন।