ডিপিএলের ম্যাচ ঘিরে গুঞ্জন!

5

নিজস্ব প্রতিবেদক: ‘মিরপুর শেরে বাংলায় টস হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ১৯ ওভারে ৬ উইকেটে ১৩৫ রান তোলে আবাহনী। কবজির চোটে এই ম্যাচেও খেলতে পারেননি লিটন দাস। নাঈম ২১ বলে ৩ চার ১ ছক্কায় ২৩ রান করেন। আরেক ওপেনার মুনিম ১৩ বলে ১৬ করে আউট হন। নাজমুল হোসেন শান্ত ১০ রানে জীবন পেয়ে ১১ রানে আবার ক্যাচ তুলে দেন। মুশফিক আউট হন ৬ রানে। মোসাদ্দেক ৮ রানে আউট হওয়ায় ৭২ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে আবাহনী। এরপর সাইফউদ্দিন (৪০) ও আফিফ হোসেন (২৭*) ষষ্ঠ উইকেটে ৪০ বলে ৬১ রানের জুটি গড়ে আবাহনীকে রক্ষা করেন।;

‘অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে করোনাকালে শুরু হয়েছে ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ (ডিপিএল)। মূলতঃ ঘরোয়া ক্রিকেটারদের স্বার্থেই লিগের আয়োজন করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। কারণ এটাই ঘরোয়া ক্রিকেটারদের আয়ের বড় উৎস। আজ চতুর্থ দিনে একটি ম্যাচ নিয়ে ইতোমধ্যেই দেশের ক্রিকেট পাড়ায় গুঞ্জন শুরু হয়েছে। আবাহনী লিমিটেড বনাম ওল্ড ডিওএইচএসর ম্যাচটি নিয়ে এই গুঞ্জনের যথেষ্ট কারণ আছে। ম্যাচে ডাকওয়ার্থ-লুইস-স্টার্ন পদ্ধতিতে ২২ রানে জয় পায় মুশফিকুর রহিমদের আবাহনী।;

ডিওএইচের সামনে ১৯ ওভারে লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৩৬ রানের। খেলা ছাপিয়ে আলোচনায় চলে আসে তাদের ব্যাটিং। রান তাড়া করতে নেমে তারা ১৯ ওভারে ১৩৩ রানে থামে। কিন্তু হাতে তখনো ৭ উইকেট! প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে যে, ওল্ড ডিওএইচ কি আসলেই জিততে চেয়েছিল? আগ্রাসী ওপেনার আনিসুল ইসলাম ইমন ২৭ বলে করেন ২০ রান। আরেক ওপেনার রাকিন আহমেদ প্রায় ১৫ ওভার উইকেটে থেকে আউট হন ৪৪ বলে ৪৩ করে। আগের ম্যাচে ৭৮ রানের ইনিংস খেলা মাহমুদুল হাসান জয় তিনে নেমে করেন ২০ বলে ১৫। হাতে ৭ উইকেট রেখে বলপ্রতি রান করতে না পারা টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটে বিরল!