তারাকান্দায় ধর্ষণের ঘটনায় মামলা করে বিপাকে স্কুল ছাত্রীর পরিবার

3

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি: ময়মনসিংহের তারাকান্দায় ধর্ষণের ঘটনায় মামলা করে বিপাকে পড়েছেন এক স্কুল ছাত্রীর পরিবার। মামলা তুলে নিতে ভিকটিম পরিবারকে নানাভাবে ভয়ভীতি হুমকি দিচ্ছে আসামী পক্ষ। প্রভাবশালী চক্রে হুমকির মুখে ভয় শঙ্কায় দিন কাটাচ্ছে ভিকটিম পরিবার। প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন নিরীহ পরিবারের সদস্যরা।

অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার বিসকা গ্রামের বাসিন্দা এক হতদরিদ্র ব্যক্তি পার্শ্ববর্তী গৌরীপুর উপজেলার গাজীপুর মোড়ের একটি কাঠের মিলে নাইট গার্ডের কাজ করে জীবিকা নির্বাহ করেন। এক মেয়ে, দুই ছেলে ও স্ত্রীসহ ৫ সদস্যের সংসার তাঁর। গত ২৪ মে হঠাৎ পঞ্চম শ্রেণিতে পড়ু–য়া তাঁর নাবালিকা মেয়েকে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণ করে বিসকা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দপ্তরির ছেলে মো: সাদ্দাম হোসেন। দিশেহারা হয়ে বিচারের আশায় তিনি ছুটতে থাকেন স্থানীয় গণমান্যদের কাছে। কিন্তু ঘটনার দুই মাসেও বিচার না পেয়ে গত ২৯ আগষ্ট তারাকান্দা থানায় ধর্ষণ মামলা দায়ের করেন ভিকটিমের পিতা।

এরপর থেকেই প্রতিনিয়ত মামলা তুলে নিতে আসামি পক্ষের প্রভাবশালীদের চাপে ভয় আতঙ্কে এখন দিন কাটছে তাঁর।
এদিকে ধর্ষনের ঘটনায় নাবালিকা মেয়ে গর্ভবতি হয়ে দিন দিনে অসুস্থ হয়ে পড়ছে। সেই সাথে চাপ বাড়ছে সামাজিক লোক-লজ্জার। ফলে দু:শ্চিন্তায় দিন কাটছে ঐ পরিবারের।
ভিকটিমের বাবা জানান, মেয়ের ধর্ষনের বিচার চেয়ে মামলা করে এখন আমি ভয়ে থাকি। আসামি পক্ষের লোকজন মামলা তুলে নিতে বলছে। না হলে, যে কোন সময় ক্ষতি করবে বলেও হুমকি দিচ্ছে।
তারাকান্দা থানার উপ-পরিদর্শক ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা পলাশ চন্দ্র পাল জানান, এই ধর্ষনের ঘটনায় মামলা দায়ের হয়েছে। মামলায় দপ্তরি সাদ্দাম হোসেনকে প্রধান করে সহযোগীতার অভিযোগে মোছা: সাবিনা আক্তার(২১) নামের এক নারীকেও আসামি করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, দপ্তরি সাদ্দাম আত্মগোপনে থেকে গত ৭ সেপ্টেম্বর আদালতে আত্মসমর্পণ করেছে। বর্তমানে সে কারাগারে আছে। তবে মামলার তদন্তে বাদি পক্ষকে হুমকি বা চাপ দেয়ার কোন প্রদান তিনি পাননি বলেও জানান।

এ বিষয়ে বিসকা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা মোছা: হেলেনা আক্তার জানান, ঘটনার পরপরই বিষয়টি উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে অবহিত করা হয়েছে। তারা ঘটনার বিষয়ে তদন্ত প্রতিবেদন চেয়েছেন। ইতিমধ্যে প্রতিবেদন দাখিল করা হয়েছে। এখন প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন করবেন তারা।