দামুড়হুদা উপজেলা সীমান্তবর্তী গ্রামগুলো ব্যাপক হারে কোভিড-১৯ বৃদ্ধি পাওয়ায় আতংক ১১টি গ্রাম লকডাউনের আওতায়।

25

দর্শনা (চুয়াডাঙ্গা) প্রতিনিধিঃ চুয়াডাঙ্গা জেলার দামুড়হুদা উপজেলা সীমান্তবর্তী গ্রামগুলো ব্যাপক হারে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে আজ একজনের মৃত্যু। জাহাজ পোতা গ্রামের নুরুল হক করোনা ভাইারাসে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। আরো ৪টি গ্রাম লকডাউন দেওয়ার সিদ্ধান্ত। এ নিয়ে উপজেলা প্রশাসন ১১টি গ্রাম লকডাউনের আওতায় নিচ্ছে। গত ২রা জুন উপজেলার প্রসাশন এর উদ্যোগে ৭টি গ্রাম লকডাউনের আওতায় নিয়ে আসেন। এসব গ্রাম মুন্সিপুর, পীরপুরকুল্লা, হরিরামপুর, কতুবপুর, শিবনগর, হুদাপাড়া ও জাহাজপোতা। আজ দামুড়হুদা উপজেলা প্রসাশনের আয়োজনে বেলা ১১টায় কোভিড-১৯ মোকাবেলায় উপজেলা চেয়ারম্যানের সভাপতিত্বে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় ভারত থেকে বৈধ্য-অবৈধ্য ভাবে কোভিড-১৯ ভাইরাসে আক্রান্ত প্রবেশ করতে না পারে সে বিষয় সর্তক থাকতে প্রসাশন, স্থানীয়, জনপ্রতিনিধি ও বিজিবিকে সর্তক থাকতে বলেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজী আলী আজগার টগর। এছাড়া তিনি বড়বলদিয়া, ঠাকুরপুর, ফুলবাড়ি ও চাকুলিয়া এ ৪টি গ্রাম লকডাউল করে দেওয়ার জন্য স্থানীয় চেয়ারম্যান ও প্রসাশন আহ্বান জানান। এছাড়া কড়া সর্তক করার জন্য সকলকে সজাগ থাকতে বলেন। সভায় উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকতার্ ডাঃ আবু হেনা মোহাম্মদ জামাল শুভ সর্বশেষ করোনা পরিস্থিতি তুলে ধরে বলেন, দামুড়হুদা উপজেলায় বর্তমানে ৯৭জন কোরনা আক্রান্ত রোগী সনাক্ত করা হয়েছে। এদের মধ্যে ৬২জন নিজ নিজ বাড়িতে চিকিৎসা নিচ্ছে। বাকী রোগীরা দামুড়হুদা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্র, চুয়াডাঙ্গা সদর ও মুজিব নগর হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে। গত ২৩ মে থেকে ০৫জুন পর্যন্ত ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

যার আক্রান্তের হার প্রায় ২০%। এর মধ্যে বেশির ভাগ রোগী ভাল হয়ে বাড়ী ফিরেছে। গত ৫জুন জাহাপোতা গ্রামের নুরুল হক (৬২), ২৯ মে কাপার্সডাঙ্গা গ্রামের আনোয়ার হোসেনের ছেলে আব্দুল মান্নান (৬২) ও আরামডাঙ্গা গ্রামের লুৎফর রহমানের স্ত্রী (৫২), ২৭ মে আলম শেখের স্ত্রী আমেনা বেগম (৩৪) ও শিবনগর গ্রামের এক চুল ব্যাসায়ী শরিফুল ইসলাম (২৬) ও উপজেলা বাঘাডাঙ্গা গ্রামের আক্কাস আলীর ছেলে রেজাউল হক (৫২) সহ ৭ জন করোনা আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বরণ করেছেন এ পরিস্থিতিতে দামুড়হুদা উপজেলা নিবার্হী অফিসার ও উপজেলা চেয়ারম্যান আলী মুনছুর বাবু , এ সভায় উপস্থিত ছিলেন, দামুড়হুদা উপজেলার সীমান্তবতর্ী ইউনিয়নের ৮ জন চেয়ারম্যান, দর্শনা পৌর মেয়র মতিয়ার রহমান, উপজেলায় কর্মরত স্থানীয়, জাতীয় ও ইলেক্রট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক, ইউপি দফাদার, দুইটি থানার পুলিশ কর্মকতারা া সভায় সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টায় করোনা মোকাবেলায় নানা পদক্ষেপ নিয়েছে।