নরওয়েতে তীর ও ধনুক নিয়ে হামলা, নিহত ৫

16

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: শান্তিপূর্ণ দেশ হিসেবে পরিচিত নরওয়েতে তীর ও ধনুক নিয়ে করা এক হামলায় পাঁচ জনের প্রাণহানি হয়েছে। বুধবার (১৩ অক্টোবর) স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ছয়টার দিকে রাজধানী অসলো থেকে ৮০ কিলোমিটার দূরে কংসবার্গ নামে শহরে এই হামলা হয়। পরে ৩৭ বছর বয়সী ড্যানিশ এক ব্যক্তিকে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করে পুলিশ।

দেশটির পুলিশ প্রধান ওয়েভিন্দ আসের বরাত দিয়ে বিবিসি জানায়, একজনকেই এই হামলা চালাতে দেখা গেছে। হামলার উদ্দেশ্য সম্পর্কে এখনও জানা যায়নি। তবে তিনি আর অন্য কোনও অস্ত্র ব্যবহার করেছেন কিনা তা নিয়েও তদন্ত চলছে।

হতাহতদের মধ্যে একজন পুলিশ কর্মকর্তাও রয়েছেন। তবে তিনি দায়িত্বরত ছিলেন না। ছুটিতে থাকা অবস্থায় বাজার করতে বেরিয়ে ওই পুলিশ কর্মকর্তা মারা গেছেন বলে জানা গেছে। এছাড়া আহতদের স্থানীয় একটি হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কংসবার্গের একটি সুপার মাকের্টে এলোপাতারি তীর ছুড়ে শহরের বাইরে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে সন্দেহভাজন ওই ব্যক্তিকে আটক করা হয়। শহরের বড় একটি অংশ ঘেরাও করে রেখেছে পুলিশ। আপাতত এলাকার বাসিন্দাদেরও বাইরে বের হতে নিষেধ করা হয়েছে।

ঘটনাস্থলে একাধিক অ্যাম্বুলেন্স, পুলিশের গাড়ি, হেলিকপ্টারসহ জরুরি সেবার গাড়ি দেখা গেছে বলেও প্রতিবেদনটিতে জানানো হয়।

উল্লেখ্য, নরওয়ের পুলিশ সাধারণ অস্ত্রবিহীন থাকলেও জরুরি প্রয়োজনে তাদের বন্দুক ও পিস্তল ব্যবহারের অনুমতি রয়েছে। ঘটনার পর পুলিশ সদর দফতর থেকে জরুরি ঘোষণা দিয়ে সারাদেশে পুলিশ কর্মকর্তাদের অস্ত্র বহনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

ঘটনাটিকে ‘ভয়াবহ’ আখ্যায়িত করে এক সংবাদ সম্মেলনে নরওয়ের প্রধানমন্ত্রী এর্না সোলবার্গ বলেন, অনেকের ভয় পাওয়ার বিষয়টি আমি বুঝতে পারছি। তবে এখন পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে থাকার বিষয়টিও মনে রাখা জরুরি।