ব্রাহ্মণবাড়িয়া হেফাজতের তাণ্ডব : ২০ মাদরাসা ছাত্র বহিষ্কার

4

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা প্রতিনিধি: ‘হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবের ঘটনায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদরাসার ২০ ছাত্রকে বহিষ্কার করেছে কর্তৃপক্ষ।;

‘সোমবার জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদরাসার শিক্ষাসচিব মুফতি শামছুল হক সরাইলী সাক্ষরিত বহিষ্কার আদেশ থেকে এ তথ্য জানা গেছে।;

বহিষ্কৃত ছাত্ররা হলেন- ‘আশেকে এলাহী, আবু হানিফ, মিছবাহ উদ্দিন, আশরাফুল ইসলাম, আলাউদ্দিন, মকবুল হোসেন, রফিকুল ইসলাম, মুবারক উল্লাহ, বুরহানুদ্দীন, আব্দুল্লাহ আফজাল, জুবায়ের, হিজবুল্লাহ রহমানী, শিব্বির আহমেদ, জুবায়ের, ইফতেখার আদনান, সাইফুল ইসলাম, সোলাইমান, রাকিব বিল্লাহ, তারিক জামিল ও হাবিবুল্লাহ। তারা সবাই ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের ছাত্র।;

‘জামিয়া ইসলামিয়া ইউনুছিয়া মাদরাসার শিক্ষাসচিব মুফতি শামছুল হক সরাইলী সাক্ষরিত বহিষ্কার আদেশে বলা হয়, ‘ভর্তি পালনীয় শর্তাবলীর ২৫নং ধারায় মাদরাসার সমুদয় রীতিনীতি ও আইন-কানুন অমান্য করে হুজুরদের বাধাকে উপেক্ষা করে গত ২৬ মার্চ সরকারি স্থাপনায় আক্রমণ করার সংবাদ পাওয়ার ভিত্তিতে তাদেরকে বহিষ্কার করা হলো।;

‘এর আগে গত ৫ এপ্রিল ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রেস ক্লাবে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তাণ্ডবের ঘটনায় দলীয় কোনো নেতাকর্মী বা মাদরাসাছাত্র জড়িত নয় বলে দাবি করেন হেফাজতে ইসলামের নেতৃবৃন্দ। পরবর্তীতেও তারা তাণ্ডবের দায় অস্বীকার করেন।;

‘ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরের বিরোধীতা করে গত ২৬ থেকে ২৮ মার্চ পর্যন্ত ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ব্যাপক তাণ্ডব চালায় হেফাজতে ইসলাম। তারা শতাধিক সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠান, বাড়িঘরে হামলা-ভাঙচুর ও অগ্নিসংযোগ করে। এ সময় সংঘর্ষে অন্তত ১৩ জন মারা যান। ঘটনার এক মাসে পুলিশ ৩৫৯ জনকে গ্রেপ্তার করে।;

‘এর মধ্যে রবিবার রাতে গ্রেপ্তার হন জামিয়া ইউনুছিয়ার শিক্ষক ও হেফাজত ইসলামের সহকারি প্রচার সম্পাদক মুফতি জাকারিয়া খান।;