সম্পর্ক বয়স নয়, হৃদয় দিয়ে হয় : মালাইকা

14

বিনোদন ডেস্কঃ সালমান খানের ভাই আরবাজ খানের সঙ্গে দুই দশকের সম্পর্ক ভেঙেছেন ২০১৭ সালে। ওই বছর থেকে অভিনেতা অর্জুন কাপুরের সঙ্গে চুটিয়ে প্রেম করছেন আইটেম গার্ল মালাইকা অরোরা। ‘ছাইয়া ছাইয়া’ তারকার বর্তমান বয়স ৪৭, তার প্রেমিক অর্জুনের ৩৫। দুজনের বয়সের ব্যবধান পাক্কা এক যুগ। অর্থাৎ অর্জুনের চেয়ে ১২ বছরের বড় মালাইকা।

বয়সের এই পার্থক্য নিয়ে গত চার বছরে বহু সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে অর্জুন-মালাইকাকে। কিন্তু এ বিষয়ে কেউ কখনোই মুখ খোলেননি। তবে একটু দেরিতে হলেও সম্প্রতি হিন্দুস্থান টাইমসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে মুখ খুলেছেন মালাইকা। এতদিন বয়স নিয়ে তাকে যে খোটা দেওয়া হয়েছে, ‘বুড়ি’ বলে সম্মোধন করা হয়েছে, সে সবের সমুচিত জবাব দিলেন অভিনেত্রী।

মালাইকা বলেন, সম্পর্কে বয়স কোনো বাধাই নয়। দুটি মনের মিলনই বড় কথা। সম্পর্ক বয়স নয়, হৃদয় দিয়ে হয়। দুঃখজনকভাবে সময় বদলাচ্ছে, কিন্তু সমাজ বদলাচ্ছে না। যদি বেশি বয়সের একজন পুরুষ অল্পবয়সী নারীর সঙ্গে প্রেম করে, তখন কেউ সমালোচনা করে না। কিন্তু নারী বয়সে বড় হলেই সে “বুড়ি” হয়ে যায়! আপনাদের সুবুদ্ধির উদ্রেক ঘটুক।

তিনি আরও বলেন, কে কী বলল তাতে আমার কিছুই আসে যায় না। আমি বরং আমার ব্যক্তিগত সম্পর্ক নিয়ে, আমার নিজের জীবন নিয়ে মনোযোগী হতে চাই। আমি আমার সম্পর্ক নিয়ে, আশেপাশের মানুষ নিয়ে খুবই খুশি। আর সেটাই গুরুত্বপূর্ণ।

প্রসঙ্গত, ১৯৯৮ সালে বলিউড অভিনেতা ও প্রযোজক আরবাজ খানকে বিয়ে করেছিলেন আলোচিত আইটেম তারকা মালাইকা। ২০১৭ সালে হয়ে যায় ডিভোর্স। সাবেক এই দম্পতির আরহান নামে একটি পুত্রসন্তান রয়েছে। গুঞ্জন রয়েছে, বর্তমান প্রেমিক অর্জুন কাপুরের কারণেই মালাইকা ও আরবাজ খানের সম্পর্কে দূরত্ব তৈরি হয়েছিল।

এই গুঞ্জনের সত্যতা তখনই প্রমাণিত হয়, ২০১৯ সালে যখন অর্জুন-মালাইকা তাদের সম্পর্কের বিষয়টি মিডিয়ার সামনে স্বীকার করেন। তারও বহু আগে থেকে তাদের একসঙ্গে বিভিন্ন পার্টি ও ডিনার ডেটে দেখা যায়। বর্তমানে তো যেখানে অর্জুন, সেখানেই মালাইকা। তারা বিদেশে একসঙ্গে ছুটি কাটাতেও গেছেন একাধিক বার।

এছাড়া গত বছর ভারতে লকডাউন শুরু হলে অর্জুন-মালাইকা একসঙ্গে এক ফ্ল্যাটে থাকতে শুরু করেন। যার কারণে কয়েক দিন আগে-পরে তারা দুজনেই করোনায় আক্রান্ত হন। সেই করোনা জয় করে আবারও তারা একসঙ্গে। দুই তারকা প্রেম তো করছেন, কিন্তু বিয়ে করবেন কবে? যদিও এই প্রশ্নের জবাব অর্জুন-মালাইকা গত চার বছরে একবারও দেননি।