স্বাধীনতার ৫০তম বছরে বাংলাদেশে গণতন্ত্র নেই: বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি

26

নিজস্ব প্রতিনিধি : স্বাধীনতার ৫০ বছর বা সুবর্ণ জয়ন্তিতে বাংলাদেশে গণতন্ত্র নেই। সেই সাথে সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারণে বাংলাদেশ রাষ্ট্রের সার্বভৌমত্বও আজ হুমকির মুখে বলে মনে করে বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টি।

কল্যাণ পার্টি মনে করে, যে চেতনাকে ভিত্তি করে ভাষা আন্দোলন হয়েছিল, স্বাধীনতা যুদ্ধ হয়েছিল, সেই গণতান্ত্রিক চেতনাকে আওয়ামী লীগ নির্বাসিত করেছে। দেশে আজ আইনের শাসন নেই, ন্যায়বিচার নেই। রাষ্ট্রের সমস্ত সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান আজ হুমকির মুখে।

আজ সোমবার মহাখালী ডিওএইচএস-এ অবস্থিত কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান কার্যালয়ে পার্টির আদর্শে অনুপ্রাণীত হয়ে বিমান বাহিনীর স্কোয়াড্রন লিডার আলী মাহমুদ খান এবং পঞ্চগড়ের বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোহাম্মদ শাহজাহান বাদশার কল্যাণ পার্টিতে যোগদানের সময় দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য এস এম নজরুল ইসলাম এ সব কথা বলেন।

তিনি দু:খের সাথে বলেন, আমরা এমন এক হতভাগা জাতি যাদের স্বাধীনতার ৫০ বছরে দাঁড়িয়ে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার আন্দোলন করতে হচ্ছে।মিড নাইট নির্বাচনসহ নানা অপকৌশলে ক্ষমতায় এসে আওয়ামী লীগ সরকার গণতন্ত্রকে কবর দিয়েছে।দেশকে পিছিয়ে দিয়েছে তারা।

এস এম নজরুল ইসলাম আরো অভিযোগ করেন, ভাষা আন্দোলনের ওপর ভিত্তি করে আমরা স্বাধীন ভূখণ্ড পেয়েছি। পেয়েছি লাল সবুজের পতাকা। কিন্তু দুর্ভাগ্যের বিষয়, যে চেতনাকে ভিত্তি করে স্বাধীনতা যুদ্ধ হয়েছিল, সেই গণতান্ত্রিক চেতনা বর্তমান দখলদার সরকার হরণ করে ফেলেছে।এমনকি জনগণের ভোটের অধিকার নেই,নেই জীবনের নিরাপত্তা।সমস্ত গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠান ধ্বংস করে একদলীয় রাষ্ট্র কায়েম করেছে তারা।ভিন্ন মতের কারোর জীবনের নিরাপত্ত নেই।সারাদেশে গুম খুন তথা রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাস কায়েম করা হয়েছে।এমন পরিস্থিতি বাংলাদেশে চলতে পারে না উল্লেখ করে নজরুল ইসলাম আরো বলেন, বাংলাদশ কল্যাণ পার্টি পরিবর্তনের জন্য রাজনীতি করছে। তাই তরুন সমাজকে এই আন্দোলনে শামিল হওয়ার আহবান জানান কল্যাণ পার্টির এই নেতা।

এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যানের সামরিক বিষয়ক উপদেষ্টা কর্নেল (অব.) কামাল আহম্মেদ (অব), পার্টির যুগ্ম মহাসচিব(দপ্তর)আল আমিন ভুইয়া রিপন।