দৈনিক জনবাণী | বাংলা নিউজ পেপার | Daily Janobani | Bangla News Paper
শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২

সেই পুলিশ সদস্যের বাইকের পেছনে ছিল ব্যাগ, গর্ভবতী স্ত্রী নয়



প্রকাশ: ৫ এপ্রিল ২০২২, ১০:১৬ পূর্বাহ্ন

টিপকাণ্ড নিয়ে উত্তেজনার রেশ যেন থামছেই না। টিপ পরায় কলেজ শিক্ষিকাকে হেনস্তার ঘটনায় অভিযুক্ত পুলিশ কনস্টেবল নাজমুল তারেক গ্রেফতারের পর সামজিক যোগাযোগ মাধ্যমে একটি ছবি ভাইরাল হয়। ভাইরাল সেই ছবিতে দেখা যায় কনস্টেবল নাজমুলের বাইকের পেছনে কিছু একটা আছে।

যা নিয়ে সামজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পক্ষে বিপক্ষে বিভিন্ন মতামত উঠে আসে। অনেকে ভাইরাল ছবিটি শেয়ার করে বলতে থাকেন, নাজমুলের বাইকের পিছনে তার গর্ভবতী স্ত্রী বসা ছিলেন। অথচ এনিয়ে কিছু বলেননি প্রভাষক ড. লতা সমাদ্দার। তিনি বিষয়টি এড়িয়ে গেছেন বলে দাবি করা হয়।

ভাইরাল ছবিটি ফেসবুকে শেয়ার করে আরিফুর রহমান নামে একজন লিখেছেন, টিপ নিয়ে শিক্ষিকাকে হেনস্তাকারী অভিযুক্ত পুলিশ কনস্টেবল নাজমুলের বাইকের পেছেনে তার গর্ভবতী স্ত্রী বসে ছিলেন, সিসিটিভির ফুটেজে যা স্পষ্ট। কিন্তু সেই গর্ভবতী নারীর বিষয়টি কেন এড়িয়ে গেলেন? লতা সমাদ্দার থানায় যে অভিযোগ করেছেন, সেখানেও উল্লেখ করেননি, পুলিশ সদস্যের গর্ভবতী স্ত্রীর কথা। অথচ পুলিশ সদস্য ও লতা সমাদ্দারের বাকবিতণ্ডার সূচনাই হয় পুলিশ সদস্যের গর্ভবর্তী স্ত্রীর পায়ের সাথে ধাক্কা লাগাকে কেন্দ্র করে।

কিন্তু আজকে ভাইরাল হওয়া আরেকটি সিসিটিভির ফুটেজ বিশ্লেষণ করে দেখা গেছে নাজমুলের বাইকের পেছনে স্ত্রী নয়, ছিল বাজারের ব্যাগ।

গত শনিবার (২ এপ্রিল) রাজধানীর গ্রিন রোডের বাসা থেকে কলেজে যাওয়ার পথে উত্ত্যক্তের শিকার হন তেজগাঁও কলেজের প্রভাষক ড. লতা সমাদ্দার। শেরেবাংলা নগর থানায় তিনি অভিযোগ করেন, হেঁটে কলেজের দিকে যাওয়ার সময় হুট করে পাশ থেকে মধ্যবয়সী, লম্বা দাঁড়িওয়ালা একজন- ‘টিপ পরছোস কেন’ বলে বাজে গালি দেন তাকে।

ঘটনার প্রতিবাদ জানালে একপর্যায়ে তার পায়ের ওপর দিয়েই ওই পুলিশ সদস্য বাইক চালিয়ে চলে যান বলে অভিযোগ করেন ড. লতা।
পরে সিসি ক্যামেরার ভিডিও এবং বিভিন্ন সোর্সের মাধ্যমে চেষ্টা চালিয়ে নাজমুলকে শনাক্ত করে পুলিশ।

ওআ/

আরও পড়ুন