ময়মনসিংহ বিএনপির পদযাত্রায় শান্তিপূর্ন শোডাউনে যুবদল নেতার মৃত্যু


Janobani

জেলা প্রতিনিধি

প্রকাশ: ০৭:২৭ পিএম, ১৮ই জুলাই ২০২৩


ময়মনসিংহ বিএনপির পদযাত্রায় শান্তিপূর্ন শোডাউনে যুবদল নেতার মৃত্যু
মো: রুহুল আমীন

ময়মনসিংহে এক দফা দাবিতে পদযাত্রা কর্মসূচিতে নজরজুড়ে শান্তিপূর্ন শোডাউন করেছে বিএনপি। এ সময় অতিরিক্ত তাপদাহে হিটস্টোকে আক্রান্ত হয়ে দক্ষিণ জেলা যুবদলের সহ-গণশিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মো: রুহুল আমীন সরকার (৪০) মৃত্যুবরণ করেছে (ইন্না..........রাজিউন)। সে সদর উপজেলার পরাণগঞ্জ ইউনিয়ন পনিষদের ১নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ছিল।      


মঙ্গলবার (১৮ জুলাই) দুপুর ২টায় ময়মনসিংহ নগরীর চরপাপড়া এলাকায় পদযাত্রা কর্মসূচি চলাকালে এই দূর্ঘটনা ঘটে।


দক্ষিণ জেলা যুবদলের সভাপতি মো: রোকনুজ্জামান সরকার রোকন যুবদল নেতা মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।  


তিনি জানান, রুহুল আমীন সরকার যুবদলের সক্রিয় নেতা। সে আমাদের সাথে পদযাত্রা কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিল। এ সময় নগরীর চরপাড়া এলাকায় পদযাত্রাটি পৌঁছলে এক পর্যায়ে রুহুল আমীন অসুস্থবোধ করে। পরে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষনা করেন।  


এদিকে প্রচন্ড রোদের তাপদাহ ও অতিরিক্ত গরমে পদযাত্রা কর্মসূচিতে অংশ নেওয়া অসংখ্য নেতাকর্মী অসুস্থ হয়ে পড়ে। এ সময় তাদেরকে পানি ঢেলে ও বাতাস করে সুস্থ করতে দেখা গেছে।  


এর আগে ময়মনসিংহ দক্ষিণ, উত্তর ও মহানগর বিএনপির যৌথ উদ্যোগে নগরীর নতুন বাজারস্থ জেলা বিএনপির কার্যালয় থেকে দুপুর সাড়ে ১২টায় বিশাল এই পদযাত্রা কর্মসূচিটি শুরু হয়ে পলিটেনিক্যাল হোস্টেল মাঠে গিয়ে শেষ হয়।


পদযাত্রা পূর্ব সংক্ষিপ্ত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট আহাম্মদ আজম খান।  


এ সময় তিনি বলেন, আর কোনো আলোচনা নয়, এখন একটাই দফা। সেটা হল সরকারের পদত্যাগ। তা না হলে পরিস্থিতি হবে ভয়াবহ। জনগণের ভোটের অধিকার শেখ হাসিনা সরকারকে আর কেড়ে নিতে দিব না।


আহমেদ আযম খান আরও বলেন, জনগণ আর তামাশার নির্বাচন করতে দেবে না। জনগণ দেখেছে ঢাকা-১৭ আসনে পাতানো, সাজানো নির্বাচন হয়েছে। ২০২৪ সালেও সরকার সেই রকম তামাশার নির্বাচন করতে চায়। কিন্তু বাংলাদেশের মানুষ, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় শেখ হাসিনাকে জানিয়ে দিয়েছে আর তামাশার নির্বাচন করতে দেবে না। দেশের জনগণের বাইরে আর কোনো ভোট হবে না। আমরা জনগণের ভোটের অধিকার রক্ষার জন্য গণতন্ত্র ও মানবাধিকার উদ্ধারের জন্য তারেক রহমানের নেতৃত্বে চূড়ান্ত আন্দোলন শুরু করেছি। শেখ হাসিনার পতন তরান্বিত করে আমাদের আন্দোলন শেষ করবো। তার আগে এই আন্দোলন শেষ হবে না।


এ সময় বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির জাতীয় নির্বাহী কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স। এছাড়াও বক্তব্য রাখেন দক্ষিণ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ডা. মাহবুবুর রহমান লিটন, মহানগর বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপক এ কে এম শফিকুল ইসলাম, সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আবু ওয়াহাব আকন্দ, যুগ্ম আহবায়ক অধ্যাপক শেখ আমজাদ আলী, দক্ষিণ জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহবায়ক জাকির হোসেন বাবলু, যুগ্ম আহবায়ক আলমগীর মাহমুদ আলম, উত্তর জেলা বিএনপির আহবায়ক অধ্যাপক এনায়েত উল্লাহ কালাম, যুগ্ম আহবায়ক মোতাহার হোসেন তালুকদার, সাবেক এমপি শাহ শহীদ সারোয়ার ও শাহ নূরুল কবীর শাহীন প্রমুখ। 


এদিকে যুবদল নেতা মৃত্যুর ঘটনায় বিএনপির পক্ষ থেকে শোক প্রকাশ করে দলের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ এমরান সালেহ প্রিন্স।  


তিনি বলেন, দেশের গনতন্ত্র ও ভোটাধিকার পুনরুদ্ধার আন্দোলনের কর্মসূচিতে যুবদল নেতা রুহুল আমীন সরকারের মৃত্যুতে আমরা শোকাহত। তাঁর এই মৃত্যু দল ও দেশের কাছে চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে। আমরা মরহুমের রুহের মাগফেরাত কামনা করছি। সেই সঙ্গে মরহুমের পরিবারের প্রতি গভীর সমবেদনা প্রকাশ করছি। আল্লাহ যেন তাদের এই শোক সইবার শক্তি দান করেন।


আরএক্স/